Wednesday, May 22, 2024
No menu items!

আমাদের মুসলিমউম্মাহ ডট নিউজে পরিবেশিত সংবাদ মূলত বিভিন্ন পত্র পত্রিকায় প্রকাশিত সংবাদের সমাহার। পরিবেশিত সংবাদের সত্যায়ন এই স্বল্প সময়ে পরিসরে সম্ভব নয় বিধায় আমরা সৌজন্যতার সাথে আহরিত সংবাদ সহ পত্রিকার নাম লিপিবদ্ধ করেছি। পরবর্তীতে যদি উক্ত সংবাদ সংশ্লিষ্ট কোন সংশোধন আমরা পাই তবে সত্যতার নিরিখে সংশোধনটা প্রকাশ করবো। সম্পাদক

হোমদৈনন্দিন খবরইচ্ছাকৃতভাবে ২ কোটি মোবাইলে ভাইরাস ঢুকিয়েছে জিওনি: চীনা আদালত

ইচ্ছাকৃতভাবে ২ কোটি মোবাইলে ভাইরাস ঢুকিয়েছে জিওনি: চীনা আদালত

মোবাইল ফোন নির্মাতা সংস্থা জিওনির বিরুদ্ধে করা একটি মামলায় রায় দিয়েছে চীনের একটি আদালত। ইচ্ছাকৃতভাবে মোবাইলে ভাইরাস পাঠিয়ে কয়েক কোটি টাকা আয়ের অভিযোগ ছিল জিওনির সহযোগী সংস্থার বিরুদ্ধে। বিচারে এর প্রমাণ পেয়েছে আদালত।

ইচ্ছাকৃতভাবে দুই কোটির বেশি মোবাইল ফোনে ট্রোজান হর্স ভাইরাস ছড়িয়েছে প্রতিষ্ঠানটি। এই ভাইরাসের কাজ হল ব্যবহারকারীর মোবাইলে অপ্রয়োজনীয় বিজ্ঞাপন দেখানো। এ ছাড়া আরো বেশ কয়েকটি অযৌক্তিক কার্যকলাপ করে এই ভাইরাস।

আদালতের রায়ে বলা হয়, ২০১৮ সালের ডিসেম্বর থেকে ২০১৯ সালের অক্টোবর মাস পর্যন্ত দুই কোটির বেশি মোবাইল ফোনে ভাইরাস দেওয়া হয়েছিল। একটি অ্যাপের মাধ্যমে ট্রোজান হর্স ভাইরসিটি ফোনগুলোতে পাঠানো হয়েছিল। এই পদ্ধতিতেই বিপুল টাকা আয় করেছে ওই সংস্থা। এই কাজের মূল হোতা ছিল জিওনির সহযোগী সংস্থা শেঞ্জেন জিপু টেকনোলজি প্রাইভেট লিমিটেড।

আদালত রিপোর্ট অনুযায়ী, ওই সময়কালের মধ্যে সংস্থাটি ট্রোজান হর্স ভাইরাসের মাধ্যমে ৪২ লক্ষ ডলার (প্রায় ৩৬ কোটি টাকা) হাতিয়ে নেয়। এর জন্য তারা ব্যয় করে ১৩ লক্ষ ডলার (প্রায় ১১ কোটি টাকা)।

এই ঘটনায় সংস্থার চার জন কর্মকর্তাকে অবৈধ ভাবে মোবাইল ডিভাইস নিয়ন্ত্রণের অভিযোগে অপরাধী সাব্যস্ত করে আদালত। এ ছাড়া আদালত তাদের প্রত্যেককে ২ লক্ষ ইউয়ান (প্রায় ২৬ লক্ষ টাকা) এবং সাড়ে তিন বছরের কারাদণ্ডের নির্দেশ দেয়।

শুধুমাত্র জিওনি নয় অতীতে অনেক চিনা মোবাইল সংস্থার বিরুদ্ধেই এ ধরনের অভিযোগ এবং প্রমাণ পাওয়া গিয়েছে। এর আগে ইনফিনিক্স এবং টেকনোর মতো মোবাইল প্রস্তুতকারক সংস্থাও একই মামলায় দোষী সাব্যস্ত হয়েছিল।

সূত্র: ইন্ডিয়া টুডে

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে

17 − 1 =

সবচেয়ে জনপ্রিয়

সাম্প্রতিক মন্তব্য