Wednesday, May 22, 2024
No menu items!

আমাদের মুসলিমউম্মাহ ডট নিউজে পরিবেশিত সংবাদ মূলত বিভিন্ন পত্র পত্রিকায় প্রকাশিত সংবাদের সমাহার। পরিবেশিত সংবাদের সত্যায়ন এই স্বল্প সময়ে পরিসরে সম্ভব নয় বিধায় আমরা সৌজন্যতার সাথে আহরিত সংবাদ সহ পত্রিকার নাম লিপিবদ্ধ করেছি। পরবর্তীতে যদি উক্ত সংবাদ সংশ্লিষ্ট কোন সংশোধন আমরা পাই তবে সত্যতার নিরিখে সংশোধনটা প্রকাশ করবো। সম্পাদক

হোমদৈনন্দিন খবরউম্মাহ খবরইসরাইলের প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রীর স্মৃতি-উত্সব থেকে নাম প্রত্যাহার করলেন মার্কিন কংগ্রেস মহিলা

ইসরাইলের প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রীর স্মৃতি-উত্সব থেকে নাম প্রত্যাহার করলেন মার্কিন কংগ্রেস মহিলা

মার্কিন কংগ্রেস মহিলা আলেকজান্দ্রিয়া ওকাসিও-কর্টেজ ইসরাইলের প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রীর স্মৃতিরক্ষা অনুষ্ঠানে অংশ নিচ্ছেন না।

তুমুল সমালোচনার মুখোমুখি হয়ে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের কংগ্রেস মহিলা আলেকজান্দ্রিয়া ওকাসিও-কর্টেজ, ইস্রায়েলের প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রী ইজহাক রবিনের স্মরণে একটি অনুষ্ঠান থেকে নিজের নাম প্রত্যাহার করে নিয়েছেন। শুক্রবার তার কার্যালয় থেকে আল জাজিরাকে এটি জানানো হয়। 

একটি সংক্ষিপ্ত ইমেইলে, নিউ ইয়র্কের এই প্রতিনিধির একজন মুখপাত্র বলেন, তিনি ২০ শে অক্টোবর ২০২০ ‘আমেরিকান ফর পিস নাও’- একটি মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র ভিত্তিক দল দ্বারা আয়োজিত স্মৃতিরক্ষা অনুষ্ঠানে অংশ নেবেন না।

তার কার্যালয় থেকে প্রত্যাহারের কারণ সম্পর্কে বিস্তারিত জানানো হয়নি। তবে, শুক্রবারে ওকাসিও-কর্টেজের করা একটি টুইটের দিকে ইঙ্গিত করা হয়েছে। এতে তিনি বলেছিলেন, “এই ইভেন্ট এবং এর সাথে আমার সম্পৃক্ততা এখন যেরুপে প্রচার করা হচ্ছে, তা থেকে আমার দলের কাছে তা ভিন্ন রুপে উপস্থাপন করা হয়েছিল।”

মুখপাত্র এর বেশি বিস্তারিত কিছু জানাননি।

ফিলিস্তিনিরা ও ফিলিস্তিনের প্রতিবাদী উকীল গোষ্ঠী প্রাক্তন ইস্রায়েলি নেতার স্মৃতিরক্ষা অনুষ্ঠানে অংশ নেওয়ার দরুন, ওকাসিও-কর্টেজকে তুমুল সমালোচনা করে। ইস্রায়েলি এই নেতা ২৫ বছর আগে খুন হয়েছিলেন। সমালোচনার পর পরই তার কার্যালয় থেকে এই সিদ্ধান্ত আসে। ওকাসিও-কর্টেজ একজন প্রগতিশীল গণতান্ত্রিক কংগ্রেস মহিলা, যিনি এওসি নামেও সমধিক পরিচিত।

রবিন ইস্রায়েলের প্রধানমন্ত্রী হিসাবে ১৯৭৪-১৯৭৭  সাল এবং ১৯৯২ থেকে ১৯৯৫ সালে তাঁর হত্যার আগ পর্যন্ত দায়িত্ব পালন করেছিলেন। তিনি ইস্রায়েলীয় লিবারেল গোষ্ঠীর কাছে একজন শান্তি কর্মী হিসেবে এবং এছাড়াও ইস্রায়েল এবং প্যালেস্টাইন লিবারেশন অর্গানাইজেশন (পিএলও) এর মধ্যে অসলো চুক্তি’ স্বাক্ষরের জন্য স্মরণীয় হয়ে আছেন।

১৯৯৫ সালের ৪ নভেম্বর, ইগল আমির নামক একজন ইসরায়েলী চরমপন্থী একটি শান্তি সমাবেশে তাকে গুলি করে হত্যা করে। যিনি তার আপস-আলোচনার বিরোধিতায় উদ্বুদ্ধ হয়ে এমনটি করেন।

তবে, ফিলিস্তিনিরা প্রথম ইন্তিফাদার অভ্যুত্থানকে কঠোরভাবে প্রতিহত করার জন্য রবিনের কথা মনে রেখেছে। প্রথম ইন্তিফাদার অভ্যুত্থান ইসরায়েলি দখলদারির বিরুদ্ধে ১৯৮০ এর দশকের শেষদিকে শুরু হয়েছিল।

সেই সময়ে প্রতিরক্ষামন্ত্রীর দায়িত্বপালনকারী রবিন, ইস্রায়েলি সেনাদের এই বিদ্রোহে জড়িত ফিলিস্তিনি বিক্ষোভকারীদের “হাড় ভেঙে ফেলার” নির্দেশনা দিয়েছেন বলে ধারণা করা হয়। তিনি ফিলিস্তিনিদের কাছে “হাড় পেষণকারী” হিসাবে সমধিক পরিচিত ছিলেন।

ব্যাপক সমালোচনা

মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে ফিলিস্তিনের একটি প্রতিবাদী উকীল গোষ্ঠী ‘অ্যাডালাহ জাস্টিস প্রজেক্ট’ শুক্রবার প্রথম টুইট করেছিল যে ওকাসিও-কর্টেজ রবিনের স্মৃতিচারণ থেকে সরে এসেছে।

ফিলিস্তিনিদের কাছে তিনি হলেন অন্যতম হিংস্রতা এবং ফিলিস্তিনিদের বাস্তুচ্যুতকরণের একজন আহবায়ক। ফিলিস্তিনি জনগণের জীবিত অভিজ্ঞতা শোনার জন্য এওসি আপনাকে ধন্যবাদ।’- দলটি টুইটারে লিখেছিল।

মার্কিন ফ্রিল্যান্স সাংবাদিক অ্যালেক্স ক্যান, যিনি প্রথম এই ইভেন্টে ওকাসিও-কর্টেজের অংশগ্রহণ সম্পর্কে প্রশ্ন উত্থাপন করেন। তিনি শুক্রবার বলেন যে, পাঁচ বছর আগে হলে তার প্রত্যাহারটি এমন হত না। ‘এখানে ফিলিস্তিনি এবং বিস্তীর্ণ ফিলিস্তিনি অধিকার আন্দোলনের কথা শোনার মতো একজন অত্যন্ত প্রভাবশালী কংগ্রেস মহিলা রয়েছেন।’- ক্যান বলেন।

ফিলিস্তিনের মানবাধিকার আইনজীবী নওরা এরাকাতও শুক্রবারে ওকাসিও-কর্টেজের সমালোচনা করে বলেন, তার ”এমন কোনো অনুষ্ঠানে কথা বলা উচিত নয় যেটি রবিনের উত্তরাধিকার এবং ‘ তথাকথিত শান্তি প্রক্রিয়া’র পুনর্বাসন করে।”

গত বৃহস্পতিবারে ‘আমেরিকান ফর পিস নাও’ তাদের পরের মাসের ভার্চুয়াল স্মৃতি-উত্সবটির জন্য অংশগ্রহণকারী তিন বক্তার একজন হিসাবে ওকাসিও-কর্টেজের নাম উল্লেখ করে প্রচার ‍শুরু করেছিল।

‘রবিনের অবদান আমাদের সকলকে অনুপ্রাণিত করে’। ওকাসিও-কর্টেজ আমেরিকা ও ইস্রায়েলে আজ শান্তি ও ন্যায়বিচারের জন্য, সাহসী সেই ইস্রায়েলি নেতার মিশন পূরণ করার প্রতিফলন ঘটাবে। ‘- মার্কিন ভিত্তিক দলটি টুইটারে লিখেছিল।

ইসরাইলের সাবেক মার্কিন রাষ্ট্রদূত ড্যান শাপিরো বলেন, প্রত্যাহারের আগে তিনি আশা করেছিলেন ওকাসিও-কর্টেজ এই ইভেন্টে যোগ দেওয়া থেকে পিছিয়ে যাবেন না। ‘রবিনকে সম্মান জানানো ফিলিস্তিনিদের অধিকারের প্রতিশ্রুতিকে কোনোভাবেই হ্রাস করে না। কেননা তিনি একজন ইস্রায়েলি দেশপ্রেমিক যিনি শান্তির চেষ্টা করার জন্যই নিহত হয়েছেন।’- তিনি টুইট করেন।

তবে ফিলিস্তিনের আইনজীবী এবং বিশ্লেষক ডায়ানা বাট্টু, যিনি ফিলিস্তিনি আলোচনা দলের আইন উপদেষ্টা হিসাবে কাজ করেছেন, তিনি বলেন, রবিনের অবদানগুলোকে কৃত্রিম রুপদান করা হয়েছে।

‘রবিনের অপরাধগুলি শোভিত করার পরিমাণ অবিশ্বাস্য। তিনি যখন উদ্দেশ্য নিয়ে ‘শান্তি চাইছিলেন’ ঠিক একই সাথে তিনি তখন ইস্রায়েলি জনবসতি নির্মাণও অব্যাহত রেখেছিলেন। ১৯৯৪ সালে যখন বসতি স্থাপকারীরা হিব্রোনে ফিলিস্তিনিদের গণহত্যা করেছিল, তখন তিনি বসতি স্থাপনকারীদের কে হঠানোর বিপরীতে তাদেরকে সুরক্ষা দিয়েছিলেন।’- ডায়ানা বাট্টু টুইট করেন।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে

2 × 5 =

সবচেয়ে জনপ্রিয়

সাম্প্রতিক মন্তব্য