Thursday, February 22, 2024

আমাদের মুসলিমউম্মাহ ডট নিউজে পরিবেশিত সংবাদ মূলত বিভিন্ন পত্র পত্রিকায় প্রকাশিত সংবাদের সমাহার। পরিবেশিত সংবাদের সত্যায়ন এই স্বল্প সময়ে পরিসরে সম্ভব নয় বিধায় আমরা সৌজন্যতার সাথে আহরিত সংবাদ সহ পত্রিকার নাম লিপিবদ্ধ করেছি। পরবর্তীতে যদি উক্ত সংবাদ সংশ্লিষ্ট কোন সংশোধন আমরা পাই তবে সত্যতার নিরিখে সংশোধনটা প্রকাশ করবো। সম্পাদক

হোমদৈনন্দিন খবরতবুও সেই ভারতের পাশে দাঁড়ানোর আহ্বান মুসলিম নেটিজেনদের

তবুও সেই ভারতের পাশে দাঁড়ানোর আহ্বান মুসলিম নেটিজেনদের

ভারতে কট্টর হিন্দুত্ববাদি বিজেপির শাসনামলে অব্যাহত সংখ্যালঘু মুসলিম নিপীড়নের বিরুদ্ধে সর্বদা সোচ্চার থাকলেও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে করোনায় বিপর্যস্ত সেই ভারতের পাশে দাঁড়ানোর আহ্বান জানাচ্ছেন মুসলিমরা। ফেসবুকসহ অন্যান্য সামাজিক মাধ্যমগুলোতে মানবিক সহায়তা নিয়ে দেশটির পাশে দাঁড়ানোর জোর আহ্বান জানিয়েছেন অনেকেই। বিশ্ব মানবতার ধর্ম ইসলামের পরধর্ম সহিষ্ণুতার গৌরবোজ্জ্বল আদর্শের কথা স্মরণ করিয়ে দিয়ে অসংখ্য পোস্টে এভাবেই আহ্বান জাানানো হচ্ছে।

এদিকে, করোনাভাইরাসের ভয়াবহ প্রকোপে ভারতের তীব্র অক্সিজেন সংকট কাটাতে প্রথম মুসলিম দেশ হিসেবে সহায়তার হাত বাড়িয়ে দিয়েছে সউদী আরব। ইতোমধ্যে ভারতকে ৮০ মেট্রিক টন তরল অক্সিজেন সরবরাহ করেছেন মুসলিম বিশ্বের প্রভাবশালী এই দেশটি। একইসঙ্গে পাকিস্তানও মহামারির সময় শত্রুতা ভুলে ভারতের দিকে সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দিয়েছে। করোনার দ্বিতীয় ঢেউয়ে বিপর্যস্ত দেশটিকে ভেন্টিলেটর, বাইপ্যাপ, ডিজিটাল এক্স-রে, পার্সোনাল প্রোটেক্টিভ ইক্যুপমেন্ট (পিপিই) কিটসহ বিভিন্ন সামগ্রী পাঠানোর প্রস্তাব দিয়েছে ইসলামাবাদ।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় কেন্দ্রীয় ছাত্র সংসদের সাবেক সহ সভাপতি (ভিপি) নুরুল হক নূর সবসময় ভারতের আগ্রাসনের বিরুদ্ধে সোচ্চার থাকলেও এই মানবিক সংকটে এই মুহূর্তে মেডিকেল টিম নিয়ে ভারতের পাশে দাঁড়াতে বাংলাদেশ সরকারের প্রতি অনুরোধ জানিয়েছেন।

রোববার বিকেলে নিজের ফেসবুকে এক পোস্টে তিনি বলেন, ‘‘নিকটবর্তী প্রতিবেশী দেশ হিসেবে মহামারীর এ বিপর্যয়ে সামর্থ্য অনুযায়ী ভারতের পাঁশে দাঁড়ানো উচিত বলে মনে করি।এদেশের মানুষ ভারতের জনগণের বিরোধী নয় , ভারতীয় শাসকদের বাংলাদেশ নিয়ে আগ্রাসী নীতির বিরোধী। একজন দেশপ্রেমিক নাগরিক হিসেবে দেশের স্বাধীনতা-সার্বভৌমত্বের পক্ষে অবস্থান নেওয়াটা আমাদের নৈতিক দায়িত্ব। তাই বিভিন্ন ক্ষেত্রে ভারতের আগ্রাসন নিয়ে সোচ্চার থাকি, থাকবো।’’

ভারতের জনগণের প্রতি সমবেদনা জানিয়ে হাসিবুর রহমান লিখেছেন, ‘‘করোনায় বিপর্যস্ত ভারতবাসীর জন্য আন্তরিক দুঃখ ও সমবেদনা জানাচ্ছি। সময় এখন সব ভেদাভেদ ভুলে মানুষের পাশে দাঁড়ানোর। ধর্ম-বর্ণ-সীমানা সবকিছুর ঊর্ধ্বে এখন মানবতা। আল্লাহ মহামারি পীড়িত সব ভূখন্ডে শান্তি দিন। রাষ্ট্র থেকে ব্যক্তি পর্যায়, যার যেভাবে সম্ভব, সবার পাশে দাঁড়াই।’’

মোঃ হোসেন আলি খান লিখেছেন, ‘‘ভারত বরাবরই একটা সাম্প্রদায়িক রাষ্ট্র; প্রতিবেশী রাষ্ট্রগুলোর শোষক। তারপরেও তাদের এই বিপর্যয় ঠেকাতে প্রতিবেশি দেশগুলোর পাশে দাঁড়ানো মানবিক দায়িত্ব। তাদের এই বিপর্যয়ে প্রতিবেশি রাষ্ট্রগুলোর পাশে দাঁড়ানোর সম্প্রীতি থেকে শিক্ষা নিয়ে তারা যদি নিজেদের অসাম্প্রদায়িক চেতনায় উজ্জীবিত করতে পারে তা হবে মানবতার জয়।’’

সউদী আরবকে ধন্যবাদ জানিয়ে হাফেজ মোঃ নজরুল ইসলাম লিখেছেন, ‘‘ভারতে ৮০ মেট্রিক টন অক্সিজেন পাঠিয়েছে সৌদি আরব। ইসলাম সব সময় ভ্রাতৃত্বের শিক্ষা দেয়। বিপদের সময় মানুষের সেবায় এগিয়ে আসা ইসলামে অন্যতম ইবাদত। যখন কোনো মানুষ বিপদের সম্মুখীন হয়, তখন সে সবচেয়ে বেশি অসহায়ত্ব অনুভব করে। ইসলামের প্রকৃত শিক্ষা এটাই যে, বিপদগ্রস্ত ও অভাবের সময় একে অন্যের প্রতি আন্তরিকভাবে সহযোগিতার হাত প্রসারিত করবে।’’

হক জেমলের মন্তব্য, ‘‘মুসলমানদের উপর কতোই না নির্যাতন চালিয়েছে ভারতীয়রা। অথচ আজ মুসলিম দেশগুলোই তাদের বিপদের সময় পাশে দাঁড়িয়েছে.।দোয়া করি আল্লাহ যেন তাদেরকে এবং আমাদের বাংলাদেশকে এই মহামারি থেকে রক্ষা করেন।’’

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে

one × four =

সবচেয়ে জনপ্রিয়

সাম্প্রতিক মন্তব্য