Wednesday, May 22, 2024
No menu items!

আমাদের মুসলিমউম্মাহ ডট নিউজে পরিবেশিত সংবাদ মূলত বিভিন্ন পত্র পত্রিকায় প্রকাশিত সংবাদের সমাহার। পরিবেশিত সংবাদের সত্যায়ন এই স্বল্প সময়ে পরিসরে সম্ভব নয় বিধায় আমরা সৌজন্যতার সাথে আহরিত সংবাদ সহ পত্রিকার নাম লিপিবদ্ধ করেছি। পরবর্তীতে যদি উক্ত সংবাদ সংশ্লিষ্ট কোন সংশোধন আমরা পাই তবে সত্যতার নিরিখে সংশোধনটা প্রকাশ করবো। সম্পাদক

হোমনিবেদনঅতএব, তোমরা উভয়ে (মানব ও জিন) তোমাদের পালনকর্তার কোন কোন অনুগ্রহকে অস্বীকার...

অতএব, তোমরা উভয়ে (মানব ও জিন) তোমাদের পালনকর্তার কোন কোন অনুগ্রহকে অস্বীকার করবে?

একটি এনালজি পড়েছিলাম। দুটি বাচ্চা মাছ মহানন্দে সাঁতার কাটতে কাটতে ঘুরে বেড়াচ্ছে। সাঁতার কাটতে কাটতে তাদের সাথে এক বড় মাছের দেখা হয়ে গেল। বড় মাছ বাচ্চা মাছ দুটিকে জিজ্ঞেস করল, কি ব্যাপার! কেমন আছো তোমরা? তারপর, বলতো বাচ্চারা, তোমাদের এলাকার পানিতে আজকে আবহাওয়া কেমন? বাচ্চা মাছ দুটি আশ্চর্য হয়ে মুখ চাওয়া চাওয়ি করল। একজন জিজ্ঞেস করলো, আঙ্কেল, পানি কি?
.

ইংরেজিতে “taken for granted” বলে একটি এক্সপ্রেসন রয়েছে। যার একটি অর্থ, জীবনে কোন কিছুর ব্যাপকতা বা প্রাচুর্য খুব বেশি হওয়ার কারণে বিষয়টিকে কোন চিন্তা ভাবনা ছাড়াই গ্রহণ করা বা মেনে নেওয়া। ধরুন, আপনি আপনার জীবনে কোন আশীর্বাদ ধারাবাহিকভাবে পেয়ে যাচ্ছেন। কিন্তু কোন চিন্তাভাবনা করছেন না। কেন আপনি আশীর্বাদীটি পাচ্ছেন, আপনি আসলেই এর যোগ্য কিনা তা নিয়ে ভাবছেন না। আপনি এই আশীর্বাদের সঠিক মূল্যায়ন করছেন না, কিংবা কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করছেন না। (You have ‘taken this blessing for granted’) যেন এই আশীর্বাদ আপনারই প্রাপ্য।
.

বাচ্চা মাছগুলোর বসবাস পানিতে। পানি ছাড়া ওরা বাঁচতে পারবে না। অথচ পানি কি তাই তারা জানেনা। ঠিক একইভাবে পরম করুনাময়ের সীমাহীন নেয়ামতের গভীরে ডুবে থাকি আমরা সারাটি জীবন। অথচ এ ব্যাপারে আমাদের উদাসীনতা সীমালংঘন করেছে। জীবনের প্রতিটি মুহূর্তে বেঁচে থাকার জন্য, আমরা যে আল্লাহর উপর নির্ভরশীল এটাই আমাদের খেয়াল থাকেনা। বাচ্চা মাছ দু’টির মতো আমরাও বুঝতেই পারিনা আল্লাহর নেয়ামত ছাড়া আমরা এক মুহূর্ত টিকে থাকতে পারবো না। আমাদের জীবনাচরণ দেখলে মনে হয়, আল্লাহর প্রতিটি নিয়ামত যেন আমাদের প্রাপ্য পৈত্রিক সম্পত্তি।
.

“অতএব, তোমরা তোমাদের প্রভুর কোন্ নেয়ামতটি অস্বীকার করবে?”—–(সূরা আর রহমানঃ আয়াত ১৬)
.

আমরা আল্লাহর নিয়ামতের কৃতজ্ঞতা একেবারেই যে আদায় করি না, এটা বললে অবশ্য ভুল হবে।
এই নিয়ামতের কৃতজ্ঞতা আদায় করি আমরা ফেসবুকে ছবির ক্যাপশনে “feeling blessed” বা আলহামদুলিল্লাহ লিখে ছবি পোস্ট করে। যে ছবিতে থাকে নিজের বোন, মা বা স্ত্রীর উন্মীলিত বেপর্দা ছবি। নিয়ামতের কৃতজ্ঞতা আদায় করি আমরা হারাম চাকরি পাওয়ার সুসংবাদ শুনে নফল নামাজ আদায় করে। নিয়ামতের শুকরিয়া আদায় করি আমরা সুদের টাকায় কোরবানি দিয়ে, দুর্নীতির টাকায় মসজিদ-মাদ্রাসা তৈরি করে। পাঁচ ওয়াক্ত ফরজ নামাজ আমাদের না পড়লেও চলবে, কারণ আমাদের মন পরিষ্কার। ফরজ পর্দা আমাদের না করলেও চলবে, কারণ মনের পর্দাই বড় পর্দা। অন্যান্য হারাম কাজ চালিয়ে গেলেও কোন সমস্যা নেই। ধর্ম নিয়ে বেশি বাড়াবাড়ি করা উচিত না।
.

আমরা মনে করি, দেখার জন্য আমাদের দুটি চোখ দরকার। ভুল। পৃথিবীতে লক্ষ লক্ষ মানুষ রয়েছে যাদের চোখ আছে কিন্তু তারা দেখতে পায় না । আল্লাহ যাদেরকে দৃষ্টিশক্তির নেয়ামত দান করেছেন শুধুমাত্র তারাই দেখতে পায়। আমরা মনে করি, হাঁটার জন্য আমাদের দুটি পা দরকার। ভুল। পৃথিবীতে লক্ষ লক্ষ মানুষ রয়েছে যাদের পা রয়েছে কিন্তু তারা পঙ্গু। আল্লাহ যাদের সামর্থ্য দিয়েছেন কেবল তারাই হাঁটতে পারে। দুটি কান থাকলেই মানুষ শুনতে পারে না। লক্ষ কোটি মানুষ কান থাকা সত্ত্বেও বধির। কারণ আল্লাহ তাদের এই নিয়ামত দান করেননি। আল্লাহ আমাদের উপরের সবকটাই দান করেছেন। তাও আমাদের অন্তরে এতোটুকু কৃতজ্ঞতা বোধ কাজ করে না। নাকি অব্যাহত কুফরী, অবাধ্যতা ও ঔদ্ধত্তের কারণে আল্লাহ আমাদের অন্তঃকরণ মোহর করে দিয়েছেন, যাদেরকে আর কেউ সুপথে আনতে পারবে না।
.

“আল্লাহ তাদের অন্তরে এবং তাদের কানে মোহর লাগিয়ে দিয়েছেন এবং তাদের চোখসমূহে রয়েছে পর্দা। আর তাদের জন্য রয়েছে মহাআযাব।”—(সূরা বাকারাঃ আয়াত ৭)

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে

eight − 6 =

সবচেয়ে জনপ্রিয়

সাম্প্রতিক মন্তব্য