Wednesday, May 22, 2024
No menu items!

আমাদের মুসলিমউম্মাহ ডট নিউজে পরিবেশিত সংবাদ মূলত বিভিন্ন পত্র পত্রিকায় প্রকাশিত সংবাদের সমাহার। পরিবেশিত সংবাদের সত্যায়ন এই স্বল্প সময়ে পরিসরে সম্ভব নয় বিধায় আমরা সৌজন্যতার সাথে আহরিত সংবাদ সহ পত্রিকার নাম লিপিবদ্ধ করেছি। পরবর্তীতে যদি উক্ত সংবাদ সংশ্লিষ্ট কোন সংশোধন আমরা পাই তবে সত্যতার নিরিখে সংশোধনটা প্রকাশ করবো। সম্পাদক

হোমদাওয়া••• বংশের গৌরব !!! •••

••• বংশের গৌরব !!! •••

••• বংশের গৌরব !!! •••

*** ইবলিস শয়তানের নিখুঁত প্ররোচনায় আমরা বংশ নিয়ে গৌরববোধ করে থাকি ! আমাদের নামের আগে পরে তালুকদার / জমিদার/ মজুমদার/ চৌধুরী / আওলাদে রসুল সা: ইত্যাদিতে ভরপুর !!!

*** নতুন করে যোগ হয়েছে “ আমি অমুক মন্ত্রীর ভাগ্নে ! অমুক সচিব আমার মামা ! আমার চাচা মেজর / সেনা প্রধান ইত্যাদি !!!!!!!!

*** এসব হারাম পদ্ধতি ব্যবহার করার লক্ষ্য ও টার্গেট হলো কাউকে ব্ল্যাকমেইল করত: স্বার্থ চরিতার্থ করা ! এ শ্রেণীর লোকগুলো প্রশ্নবিদ্ধ ও খুবই মন্দ প্রকৃতির হয়ে থাকে ! পবিত্র কুরআন – হাদিস সম্পর্কে এদের আদৌ কোন সঠিক ধারণা নেই । বিষয়টি সুস্পস্ট ।

*** এ বিষয়ে পবিত্র কুরআন ও হাদিস কি বলে দেখে আসি ……

*** মহান আল্লাহপাক বলেন

ان اكرمكم عند الله اتقاكم

“ নিশ্চয়ই আল্লাহর নিকট তোমাদের মধ্যে সেই সর্বোত্তম যে ব্যক্তি আল্লাহকে অধিক ভয় করে ।”

সূরা আল হুজুরাত ১৩

*** সর্বোত্তম মানব , বিশ্ব মানবতার মুক্তির দূত মহানবী মুহাম্মদ সা: নিজ কন্যাকে বললেন “ হে ফাতেমা ! জাহান্নামের আগুন থেকে নিজেকে রক্ষা করো । কেননা কারো উপকার – অপকার করার ক্ষমতা আমার নেই ।”

ছহীহ মুসলিম ২/১১৪

*** আল্লাহপাক বলেন

قل ما كنت بدعا من الرسل و ما ادري ما يفعل بي و لا بكم ان اتبع إِلَّا ما يوحي الي و ما انا إِلَّا نذير مبين

“ হে নবী সা: ! বলুন আমি রসুলদের আ: মাঝে নতুন কেউ নই । আমি জানিনা আমার সাথে ও তোমাদের সাথে কি আঁচরণ করা হতে পারে ! আমি তো শুধুমাত্র ওহীর অনুসরণ করে থাকি মাত্র । আমি একজন স্পস্ট ভীতি প্রদর্শনকারী ব্যতিরেকে আর কিছুই নই ।”

সূরা আল আহক্বাফ ৯

*** মহানবী সা: বলেছেন “ হে আয়েশা ! কেয়ামতের দিন তিনটি স্হানে তোমাকেও আমার মনে থাকবেনা :

এক. আমলনামা দেয়ার সময়ে !

দুই. আমলনামা ওজন করার সময়ে !

এবং

তিন. পুলসিরাতে !

সুনানে আবু দাউদ

*** মহানবী সা: বলেছেন

لا فضل العربي علي العجمي إِلَّا بتقوي الله

“ অনারবদের উপর আরবদের কোন মর্যাদা নেই । মর্যাদা নির্ধারিত হয় তাকওয়ার ভিত্তিতে ।”

মুসনাদে আহমদ

*** বিশ্বনবী সা: বলেন “ আল্লাহপাক মানুষের অন্তর ও কর্মের প্রতি দৃষ্ঠিপাত করেন । আকৃতি ও বর্ণের দিকে নয় ।”

ছহীহ মুসলিম ৬৩১১

*** রসুল সা: বলেছেন “ আল্লাহর নিকট সেই ব্যক্তি সর্বাপেক্ষা উত্তম, যে, আল্লাহকে অধিক ভয় করে ।”

ছহীহুল বোখারি ৪৬৮৯

*** কবি বলেন

“ নহে আশরাফ যাঁর আছে বংশ পরিচয় !
সেই আশরাফ যাঁর জীবন পূণ্য কর্মময় ।”

*** প্রকৃত বংশ বলতে কি বুঝায় ?

*** বংশের প্রকৃত সংজ্ঞা হলো সৎ, ন্যায়পরায়ণ হওয়া । আওলাদে রসুল সা: ও তালুকদার ইত্যাদি হওয়া নয় ! মহানবী সা: সৎ ও ন্যায়পরায়ণ বংশে জন্মগ্রহণ করেন । অথচ তাঁর মা- বাবা ছিলেন মুশরিক । সাইয়্যিদুনা ইব্রাহিম আ:’র বাবা স্পস্ট জাহান্নামী । এখন তিনি কি বংশ নিয়ে গৌরব করতে পারবেন ?

*** হাদিসে বর্ণিত “ বংশীয় মেয়ে বিয়ে করার অর্থ সৎ ও ন্যায়পরায়ণ লোকদের সাথে সম্পর্ক স্হাপন । তালুকদার ও চৌধুরী ইত্যাদি উদ্দেশ্য নয় ।

*** এবার বলুন বংশীয় পদবী নিয়ে আত্মগৌরব ও অহঙ্কার করবেন কি ?????

MQM Saifullah Mehruzzaman

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে

3 + four =

সবচেয়ে জনপ্রিয়

সাম্প্রতিক মন্তব্য