Tuesday, July 16, 2024
No menu items!

আমাদের মুসলিমউম্মাহ ডট নিউজে পরিবেশিত সংবাদ মূলত বিভিন্ন পত্র পত্রিকায় প্রকাশিত সংবাদের সমাহার। পরিবেশিত সংবাদের সত্যায়ন এই স্বল্প সময়ে পরিসরে সম্ভব নয় বিধায় আমরা সৌজন্যতার সাথে আহরিত সংবাদ সহ পত্রিকার নাম লিপিবদ্ধ করেছি। পরবর্তীতে যদি উক্ত সংবাদ সংশ্লিষ্ট কোন সংশোধন আমরা পাই তবে সত্যতার নিরিখে সংশোধনটা প্রকাশ করবো। সম্পাদক

হোমদৈনন্দিন খবরকুষ্টিয়া সুগার মিলে আখ না নেওয়ায় পুড়িয়ে দিলেন কৃষক

কুষ্টিয়া সুগার মিলে আখ না নেওয়ায় পুড়িয়ে দিলেন কৃষক

কুষ্টিয়া সুগার মিলে আখ না নেওয়ায় সোমবার ২ একর জমির দণ্ডকৃত (খারাপ আখ) আখ পুড়িয়ে দিলেন কৃষক আ. ওয়াহেদ। এছাড়াও বেতন ভাতা, ওভারটাইম পরিশোধ ও চাকরি নিশ্চিতের দাবিতে শ্রমিকরা বিক্ষোভ করেছেন।

কৃষকদের অভিযোগে জানা গেছে, ভেড়ামারার সাবজোন ভবানীপুর আখ ক্রয় কেন্দ্রের অধীনে ৪৭ নং ইউনিট চকমাদিয়া গ্রামের কৃষক আ. ওয়াহেদ তার নিজ ২ একর জমির দণ্ডকৃত আখ পুড়িয়ে দিয়েছেন। কুষ্টিয়া সুগার মিল আখ নেওয়া বন্ধ করায় এই কাজটি করেছেন।

কৃষক আ. ওয়াহেদ জানান, চকমাদিয়া মাঠে ২ একর জমিতে আখ চাষ করি। জগতি সুগার মিল আখ নেওয়া বন্ধ করে দেওয়ায় জমির আখ পুড়িয়ে দিয়েছেন।

এছাড়াও বেতন ভাতা, ওভারটাইম পরিশোধ ও চাকরি নিশ্চিতের দাবিতে বিক্ষোভ করেছে কুষ্টিয়া সুগার মিলের ফ্যাক্টরি কানামুনা শ্রমিকরা। কুষ্টিয়া সুগার মিলের প্রধান ফটকে এ বিক্ষোভ করেন তারা। প্রায় ১১৫ জন কর্মরত শ্রমিক কুষ্টিয়া সুগার মিলের ফ্যাক্টরিতে কর্মরত ছিলেন হঠাৎ কাজে না আসার কথা জানালেন কুষ্টিয়া সুগার মিল কর্তৃপক্ষ এতে হতাশ।

কুষ্টিয়া সুগার মিলে কর্মরত শ্রমিক আফতাব হোসেন জানান, ১৯৯৭ সাল থেকে আমি কর্মরত আছি। মন্ত্রী বলেছিলেন, আখ মৌসুম বন্ধ হলেও শ্রমিকদের চাকরি যাবে না। কিন্তু বর্তমানে আমাদের লিখিত ডকুমেন্ট ছাড়াই মৌখিকভাবে কাজে আসতে নিষেধ করলেন কর্তৃপক্ষ। আমরা আমাদের সংসার নিয়ে এখন রাস্তায়। আমরা এখনো ৬ মাসের বেতন, ভাতা ও ওভারটাইমের টাকা পাব। এখন যদি আমরা কাজ না করি বকেয়া টাকাও না পাই তাহলে আমাদেরও জীবন অনিশ্চিত হয়ে যাবে।

শুধু আফতাব নন তার মতো একই হতাশায় ভুগছেন রতন, আব্দুল মান্নান, রুবেল হোসেন, বশির আহম্মেদসহ ১১৫ জন কর্মরত শ্রমিক। শ্রমিকদের দাবি গ্যারেজ, অফিস ও কেন বিভাগে কর্মরত শ্রমিক এখনো কর্মরত আছেন কিন্তু শুধু আমাদের ফ্যাক্টরি কর্মরত শ্রমিকদের বাদ দেওয়া হলো কেন। বাদ দিলে সকল বিভাগের কানামুনাদের বাদ দিতে হবে। বিক্ষোভে প্রধানমন্ত্রী ও শিল্পমন্ত্রীর কাছে বেতন ভাতা, ওভারটাইম পরিশোধ ও চাকরি নিশ্চিতের দাবি করেন কুষ্টিয়া সুগার মিলের কর্মরত শ্রমিকরা। শ্রমিকরা যেন এমন অবস্থায় পরিবার নিয়ে পথে না বসে এই দৃষ্টি আকর্ষণ করেন এবং অনুদানসহ সরকারি সহযোগিতা কামনা করেন কুষ্টিয়া সুগার মিলের কর্মরত শ্রমিকরা।

যাযাদি/এস

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে

three + nineteen =

সবচেয়ে জনপ্রিয়

সাম্প্রতিক মন্তব্য