Wednesday, May 22, 2024
No menu items!

আমাদের মুসলিমউম্মাহ ডট নিউজে পরিবেশিত সংবাদ মূলত বিভিন্ন পত্র পত্রিকায় প্রকাশিত সংবাদের সমাহার। পরিবেশিত সংবাদের সত্যায়ন এই স্বল্প সময়ে পরিসরে সম্ভব নয় বিধায় আমরা সৌজন্যতার সাথে আহরিত সংবাদ সহ পত্রিকার নাম লিপিবদ্ধ করেছি। পরবর্তীতে যদি উক্ত সংবাদ সংশ্লিষ্ট কোন সংশোধন আমরা পাই তবে সত্যতার নিরিখে সংশোধনটা প্রকাশ করবো। সম্পাদক

হোমদৈনন্দিন খবরক্ষমতা পেতে না পেতেই ফিলিস্তিনবিরোধী মন্তব্য মার্কিন নতুন পররাষ্ট্রমন্ত্রীর, ক্ষুব্ধ প্রতিক্রিয়া

ক্ষমতা পেতে না পেতেই ফিলিস্তিনবিরোধী মন্তব্য মার্কিন নতুন পররাষ্ট্রমন্ত্রীর, ক্ষুব্ধ প্রতিক্রিয়া

মার্কিন নতুন পররাষ্ট্রমন্ত্রী অ্যান্থনি ব্লিংকেনের একটি মন্তব্যকে কেন্দ্র করে ক্ষুব্ধ প্রতিক্রিয়া ব্যক্ত করেছে ফিলিস্তিনে বিভিন্ন রাজনৈতিক দল। অ্যান্থনি ব্লিংকেন বলেছেন, তিনি পবিত্র আল-কুদস বা জেরুজালেম শহরকে ইসরায়েলের রাজধানী মনে করেন।

মঙ্গলবার সিনেটের এক শুনানিতে তাকে জিজ্ঞেস করা হয় তিনি জেরুজালেম শহরকে ইসরায়েলের রাজধানী মনে করেন কি না এবং ট্রাম্পের বিদায়ের পর জেরুজালেম শহরেই মার্কিন দূতাবাস রাখা হবে কি না। জবাবে ব্লিংকেন দু’বার হ্যাঁ বলেন। দীর্ঘদিনের অনুসৃত নীতি উপেক্ষা করে ডোনাল্ড ট্রাম্প জেরুজালেম শহরকে ইসরায়েলের রাজধানী হিসেবে স্বীকৃতি দেন এবং তেল আবিব থেকে মার্কিন দূতাবাস জেরুজালেম শহরে স্থানান্তর করেন। ট্রাম্পের বিদায়ের পর সেই ধারা অব্যাহত থাকবে কি না তা নিয়ে নানা প্রশ্ন ছিল, সেই প্রশ্নের অবসান ঘটালেন ব্লিংকেন।

তার এই ঘোষণার পর গাজাভিত্তিক ইসলামি প্রতিরোধ আন্দোলন হামাস বলেছে, আন্তর্জাতিক যে সমস্ত আইন ও প্রস্তাবনার মাধ্যমে জেরুজালেম শহরকে ইসরায়েলের হাতে দখল হয়ে যাওয়া শহর হিসেবে উল্লেখ করা হয়েছে ব্লিংকেনের বক্তব্য তার সাথে সম্পূর্ণভাবে সাংঘর্ষিক। 

হামাসের মুখপাত্র হাজেম কাসেম বলেছেন, এটি সমস্ত আরব জাতির জন্য আরেকটি প্রকাশ্য অপমান।

গাজাভিত্তিক ইসলামি জিহাদ আন্দোলনও বলেছে, যেসব দেশ বাইডেন প্রশাসনের কাছে নতুন কিছু প্রত্যাশা করছিল এই বক্তব্যের মধ্যদিয়ে মার্কিন প্রশাসন তাদের মুখে থাপ্পড় মেরেছে। সংগঠনের 

মুখপাত্র দাউদ শিহাব বলেন, ব্লিংকেনের এই বক্তব্যের মধ্য দিয়ে আবার পরিষ্কার হল যে, তারা দখলদার ইসরায়েল সরকারকে সমর্থন করছে এবং তাদের নেতৃত্বে কোনও পরিবর্তন আসবে না। এও পরিষ্কার হল যে, ফিলিস্তিনিদেরকে দীর্ঘ সংগ্রাম করতে হবে।

এদিকে, পশ্চিম তীরের আরেকটি রাজনৈতিক সংগঠন ফাতাহ আন্দোলনের শীর্ষ পর্যায়ের কর্মকর্তা আব্দুল্লাহ আব্দুল্লাহ বলেছেন, এটি স্মরণ রাখা দরকার যে ১৯৯৫ সালে মার্কিন কংগ্রেস আল-কুদস শহরকে ইসরায়েলের রাজধানী হিসেবে স্বীকৃতি দেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছিল। ডোনাল্ড ট্রাম্প কেবল সেই সিদ্ধান্ত বাস্তবায়ন করেছেন এবং তার উত্তরসূরি জো বাইডেন কংগ্রেসের সিদ্ধান্তকে উল্টে দিতে পারবেন না। আব্দুল্লাহ আব্দুল্লাহ পূর্ব বায়তুল মুকাদ্দাস শহরকে ফিলিস্তিনের রাজধানী হিসেবে স্বীকৃতি দিয়ে সেখানে মার্কিন কনস্যুলেট অফিস খোলার আহ্বান জানান যাতে আমেরিকার সঙ্গে কুটনৈতিক তৎপরতা শুরু করা যায়।

বিডি প্রতিদিন/কালাম

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে

fifteen + 14 =

সবচেয়ে জনপ্রিয়

সাম্প্রতিক মন্তব্য