Thursday, April 18, 2024
No menu items!

আমাদের মুসলিমউম্মাহ ডট নিউজে পরিবেশিত সংবাদ মূলত বিভিন্ন পত্র পত্রিকায় প্রকাশিত সংবাদের সমাহার। পরিবেশিত সংবাদের সত্যায়ন এই স্বল্প সময়ে পরিসরে সম্ভব নয় বিধায় আমরা সৌজন্যতার সাথে আহরিত সংবাদ সহ পত্রিকার নাম লিপিবদ্ধ করেছি। পরবর্তীতে যদি উক্ত সংবাদ সংশ্লিষ্ট কোন সংশোধন আমরা পাই তবে সত্যতার নিরিখে সংশোধনটা প্রকাশ করবো। সম্পাদক

হোমদৈনন্দিন খবরপ্রায় অর্ধেক আরব যুবক দেশত্যাগের কথা বিবেচনা করছেন: আরব যুব সমীক্ষা ২০২০

প্রায় অর্ধেক আরব যুবক দেশত্যাগের কথা বিবেচনা করছেন: আরব যুব সমীক্ষা ২০২০

লেভান্ট অঞ্চলে ১৮-২৪ বছর বয়সী সর্বাধিক সংখ্যক যুবক দেশত্যাগের কথা বিবেচনা করছেন- আরব যুব সমীক্ষা ২০২০ থেকে প্রাপ্ত।

আরব যুব সমীক্ষা ২০২০ থেকে পাওয়া তথ্য অনুযায়ী, ১৮-২৪ বছর বয়সী ১০ জনের মধ্যে চার জনেরও বেশি লোক তাদের দেশ থেকে অন্যত্র চলে যাওয়ার কথা বিবেচনা করছেন।

মঙ্গলবার প্রকাশিত হওয়া সমীক্ষায় ১৭ টি দেশের ৪,০০০ আরব যুবকের সাক্ষাত্কার নেওয়া হয়েছে। সেখানে আরো দেখা গেছে যে, জরিপ করা সমস্ত আরব যুবকের ৪২ শতাংশই অন্য কোনো দেশে চলে যাওয়ার কথা বিবেচনা করছেন এবং এর ১৫ শতাংশ কার্যকরভাবে চলে যাওয়ার চেষ্টা করেছিলেন।

লেভান্ট অঞ্চলে (বিভিন্ন দ্বীপ ও পারিপার্শ্বিক দেশসমূহ সহ ভূমধ্যসাগরের পূর্ব অংশ) সর্বাধিক সংখ্যক যুবক দেশান্তরী হতে চেয়েছিল। যা শতকরা ৬৩ ভাগের কাছাকাছি। শুধুমাত্র লেবাননে এই সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ৭৭ শতাংশে।

জরিপটি থেকে জানা যায়, উপসাগরীয় দেশগুলির মধ্যে সৌদি আরব এবং সংযুক্ত আরব আমিরাতের যুবকদের দেশত্যাগ করার সম্ভাবনা সবচেয়ে কম ছিল। যা সংখ্যায় ৩%।

সমীক্ষায় দেখা গেছে যে, দুর্বল নেতৃত্বের সাথে নিরাশা, ব্যাপক দুর্নীতি এবং ব্যাপক অর্থনৈতিক ব্যর্থতা হল সেসকল কারণগুলি, যেগুলো অনেক যুবককে দেশত্যাগের বিষয়টি বিবেচনা করিয়েছে।

সমস্ত আরব যুবকের মোট ৭৭ শতাংশই বলছেন যে, তাদের দেশ দুর্নীতিগ্রস্থ।

কোভিড-১৯ মহামারী অর্থনৈতিক সমস্যাগুলি আরও প্রকট করেছে। সমীক্ষায় থাকা ২০ শতাংশ যুবক জানিয়েছেন যে, প্রাদুর্ভাব শুরু হওয়ার পর থেকে তারা বা পরিবারের কোনো সদস্য চাকরি হারিয়েছেন।

সামগ্রিকভাবে, আরব যুবকদের ৭২ শতাংশ বলেছেন, তাদের ধারণা চাকরি খুঁজে পাওয়া আরও কঠিন হবে। সর্বাধিক সংখ্যক যুবক বলছেন যে লেবাননে (৯১ শতাংশ) এবং জর্ডানে (৯০ শতাংশ) কর্মসংস্থানের সুযোগ সবচেয়ে কম ছিল।

জরিপকৃতদের মধ্যে ৩৫ শতাংশ আরব যুবক ব্যক্তিগতভাবে ঋণগ্রস্ত হয়ে আছেন বলে জানিয়েছেন। ২০১৯ সালে যা ২১% ছিল।

লেবানন, আলজেরিয়া, ইরাক এবং সুদানের জরিপ করা যুবকরা তাদের দেশের ২০১৯ সালের সরকারবিরোধী বিক্ষোভের স্বপক্ষে প্রবল সমর্থন প্রকাশ করেছেন। সব মিলিয়ে যা ৮০ শতাংশেরও বেশি।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে

3 + 13 =

সবচেয়ে জনপ্রিয়

সাম্প্রতিক মন্তব্য