Wednesday, February 28, 2024

আমাদের মুসলিমউম্মাহ ডট নিউজে পরিবেশিত সংবাদ মূলত বিভিন্ন পত্র পত্রিকায় প্রকাশিত সংবাদের সমাহার। পরিবেশিত সংবাদের সত্যায়ন এই স্বল্প সময়ে পরিসরে সম্ভব নয় বিধায় আমরা সৌজন্যতার সাথে আহরিত সংবাদ সহ পত্রিকার নাম লিপিবদ্ধ করেছি। পরবর্তীতে যদি উক্ত সংবাদ সংশ্লিষ্ট কোন সংশোধন আমরা পাই তবে সত্যতার নিরিখে সংশোধনটা প্রকাশ করবো। সম্পাদক

হোমদৈনন্দিন খবরসাড়ে তিন কোটি টাকা আত্মসাৎ: এনবিআর কর্মকর্তা বহিষ্কার

সাড়ে তিন কোটি টাকা আত্মসাৎ: এনবিআর কর্মকর্তা বহিষ্কার

জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের (এনবিআর) খুলনা কর অঞ্চলের সহকারী কর কমিশনার মো. মেজবাহ্উদ্দিন আহমেদ তিন কোটি পঞ্চাশ লাখ ছাব্বিশ হাজার নয় শত ঊনত্রিশ টাকা আত্মসাৎ করেছে। এ অপরাধে তাকে আজ মঙ্গলবার স্থায়ীভাবে চাকরি থেকে বহিষ্কার করা হয়েছে। এনবিআর সূত্রে এ তথ্য জানা যায়।

মো. মেজবাহ্উদ্দিন কর অঞ্চল-খুলনা উত্তর কর অঞ্চলের আওতাধীন বিভিন্ন কর সার্কেলে কর্মরত থাকাকালীন সময়ে সংশ্লিষ্ট কর সার্কেলের করদাতাদের দেওয়া পে-অর্ডার, ডিডি, ক্রসচেক ইত্যাদি সরকারি কোষাগারে জমা না দিয়ে নিজের বিভিন্ন ব্যাংক হিসাবে অবৈধভাবে জমা রাখেন। এরপর সুবিধা মতো সময়ে নিজ স্বাক্ষরিত চেকের মাধ্যমে তিন কোটি পঞ্চাশ লাখ ছাব্বিশ হাজার নয় শত ঊনত্রিশ টাকা বিভিন্ন মেয়াদে উঠিয়ে আত্মসাৎ করে। 

সরকারি কর্মচারী শৃঙ্খলা ও আপিল বিধিমালা ২০১৮ এর বিধি-৩(খ) ও ৩(ঘ) অনুযায়ী এনবিআর থেকে কেন মেজবাহ্উদ্দিনকে চাকরি হতে বরখাস্ত করা হবে না সে বিষয়ে কারণ দর্শানো নোটিশ প্রদান করা হয়। 

এনবিআর থেকে তদন্তে মো. মেজবাহউদ্দিনের বিরুদ্ধে আনা অভিযোগ প্রমাণিত হয়। অভিযোগ প্রমাণ হওয়ার পর তাকে সরকারি চাকরি হতে বরখাস্ত করতে ২৩ জানুয়ারি রাষ্ট্রপতি অনুমোদন দেন। 

মঙ্গলবার (২৬ জানুয়ারি) মেজবাহউদ্দিনকে চাকরি থেকে স্থায়ীভাবে বরখাস্ত করা হয়। 

এনবিআর সূত্র জানায়, মেজবাহউদ্দিন আহমেদ পে-অর্ডার, ডিডি, ক্রস চেক, ইত্যাদি সরকারি কোষাগারে চালানের মাধ্যমে জমা না দিয়ে সোনালী ব্যাংক হিসাব নং ২৪১৪২০০০০৬৯৪৬ এ জমা প্রদান করেন এবং এখান থেকে নিজে স্বাক্ষরিত চেকের মাধ্যমে ৩১ লাখ ৪০ হাজার ৪৮৪ টাকা উঠিয়ে আত্মসাৎ করেন। নওয়াপাড়ার সোনালী ব্যাংকের হিসাব নম্বর ২৩২৪২০০০০৩০৫৩ চালু করেন। এখানে করদাতাদের দাখিলকৃত পে-অর্ডার, ডিডি, ক্রস চেক, ইত্যাদি সরকারি কোষাগারে ঢালানের মাধ্যমে জমা প্রদান না করে ব্যাংক হিসাব নং-২৩২৪২০০০০৩০৫৩ এ জমা প্রদান করে নিজ স্বাক্ষরিত চেকের মাধ্যমে ৩ লাখ ৮ হাজার টাকা উত্তোলন করে আত্মসাৎ করেন।

একইভাবে সোনালী ব্যাংকের ব্যাংক হিসাব নং-২৯৫১৩৩০০০৬৫৭, এ জমা করে নিজ স্বাক্ষরিত চেকের মাধ্যমে ২ কোটি ১০ লাখ ৮ হাজার ৪২৩ টাকা উত্তোলন করে আত্মসাৎ করেন। বাগেরহাট ব্রাক ব্যাংক লিঃ ব্যাংক হিসাব নম্বর-০২০১২০৪০১৮০৩৯০০১ ঢালু করেন এবং ০২০১২০৪০১৮৩৯০০১ এ নিজ স্বাক্ষরিত চেকের মাধ্যমে ৪ লাখ ৭০ হাজার টাকা উত্তোলন করেন। এভাবে সে দফায় দফায় বিভিন্ন নামে ব্যাংক হিসাব খুলে টাকা জমা রাখে এবং উত্তোলন করেন। 

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে

fourteen + 17 =

সবচেয়ে জনপ্রিয়

সাম্প্রতিক মন্তব্য